২৯শে আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১৪ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং

যুব সাফের ফাইনালে বাংলাদেশ

News

নেপালের কাঠমান্ডুতে অনুষ্ঠিত অনূর্ধ্ব-১৮ সাফ ফুটবলের ফাইনালে উঠেছে বাংলাদেশ। আজ সেমিফাইনালে ভুটানকে ৪-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে বাংলাদেশের যুবারা। একটি করে গোল করেছেন তানভীর হোসেন, ফয়সাল আহমেদ ফাহিম, মারাজ হোসেন ও দীপক রয় ।
২০১৬ সালে এশিয়ান কাপ বাছাই প্লে-অফের একটি ম্যাচ বাদ দিলে ভুটানের সঙ্গে কোনো পর্যায়েই হারের রেকর্ড নেই বাংলাদেশের। অনূর্ধ্ব-১৮ সাফেই দুবারের দেখায় কোনো গোল হজম না করে দুবারই জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। ২০১৭ সালে এর আগের টুর্নামেন্টে তাদের মাঠেই ২-০ গোলে জিতেছিল বাংলাদেশ। কাঠমান্ডুতেও অব্যাহত থাকল জয়যাত্রা। এবারের জয়টা আরও বড় ব্যবধানে। আজ ম্যাচের প্রথমার্ধেই হয়েছে তিনটি গোল। কিক অফ বাঁশির ২ মিনিটেই ডিফেন্ডার তানভীর হোসেনের গোলে এগিয়ে গিয়েছিল বাংলাদেশ। লম্বা থ্রো-ইন থেকে হেডে বাংলাদেশের গোলের হিসাব খোলেন এই সেন্টারব্যাক। গোল হজমের পর সমতায় ফেরার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছিল ভুটান। অ্যাটাকিং থার্ডে তাদের দ্রুত গতির পাসিং ও জায়গা বদল করে খেলা ছিল দৃষ্টিনন্দন। কিন্তু তিন সেন্টারব্যাক তানভীর, ইয়াসিন আরাফাত ও রাহাদ মিয়াকে নিয়ে গড়া বাংলাদেশের জমাট রক্ষণভাগ ভাঙা সম্ভব হয়নি তাদের।
বাংলাদেশের খেলোয়াড়েরা প্রত্যেকেই প্রিমিয়ার লিগের খেলোয়াড়। অধিনায়ক ইয়াসিন তো মূল জাতীয় দলেরই সদস্য। বাকিদের অধিকাংশই সাইফের যুব দল পেরিয়ে গত মৌসুমে খেলেছে মূল দলের হয়ে। অন্যদিকে একাডেমির ফুটবলারদের নিয়েই সাফে এসেছে ভুটান। আজকের আগ পর্যন্ত তারা টুর্নামেন্টে খেলেছেও দুর্দান্ত। এই টুর্নামেন্টের শুরুতেই ভুটান চমক দেখায় দুইবারের চ্যাম্পিয়ন নেপালকে ৩-০ গোলে হারিয়ে। দ্বিতীয় ম্যাচে মালদ্বীপের সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করে সেমিতে উঠেছিল তারা। অভিজ্ঞ বাংলাদেশের সামনে এসে থামতেই হল। ভুটানকে হারিয়ে অনূর্ধ্ব- ১৮ সাফের ফাইনালে নাম লিখিয়েছে বাংলাদেশ। টুর্নামেন্টটি অনুষ্ঠিত হচ্ছে নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুতে। ২৭ মিনিটে বাংলাদেশের দ্বিতীয় গোলটি ফয়সাল হোসেন ফাহিম ও ফাহিম মোশেদের রসায়নে। প্রতি-আক্রমণে মিডফিল্ডার ফাহিমের পাসে বক্সের বাম প্রান্ত থেকে ২-০ করেন উইঙ্গার ফাহিম। এই গোলে ফাহিমের কৃতিত্বের চেয়ে ভুটানিজ গোলরক্ষকের দায়ই বেশি। অবশ্য বাম প্রান্তে ফাহিমকে ঠেকাতে ভুটানিজ ডিফেন্ডারদের জ্বর দিয়ে ঘাম ছাড়ার মতো অবস্থা হয়েছিল। তার দুর্দান্ত গতি ও বল নিয়ন্ত্রণের কাছে প্রতিপক্ষ রাইট ব্যাককে মনে হয়েছে নস্যি। এর ৫ মিনিট পরেই তাঁর ক্লাব দলের সতীর্থ মারাজ হোসেনের গোলটা ছিল দুর্দান্ত। বক্সের বাইরে থেকে মারাজের বুলেট গতির শট প্রতিপক্ষ গোলরক্ষক ঝাঁপালেও নাগাল পাননি। ভুটানিজদের জালে এক হালি পূরণ করেছেন বদলি মিডফিল্ডার দীপক । শেষ বাঁশি বাজার আগে বক্সের বাইলে থেকে বুলেট গতির শটে গোলটি করেছেন তিনি। টুর্নামেন্টের ফাইনাল রোববার। ভারত ও মালদ্বীপের মধ্যকার জয়ী দল হবে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ। শেষ সাফে রানার্সআপ হয়েছিল বাংলাদেশ। দেখা যাক এবার চ্যাম্পিয়ন হতে পারে কিনা।

     এ জাতীয় আরো সংবাদ

ফেজবুকে আমরা