২৯শে আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১৪ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং

ফরিদপুরে জাহিদুল খাঁ হত্যা মামলায় ৫ জনের ফাঁসির আদেশ

News

ফরিদপুরে জাহিদুল খা হত্যা মামলায় পাঁচ জনের ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন জেলা ও দায়রা জজ আদালত। রোববার বেলা তিনটার দিকে আদালতের বিচারক মো. সেলিম মিয়া এ রায় ঘোষণা করেন।
একই সাথে আদালত প্রত্যেক আসামিকে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা করেন। জরিমানার টাকা প্রত্যেক আসামিকে অব্যশই শোধ করতে হবে বলে রায়ে উল্লেখ করা হয়।
রায় ঘোষণার সময় মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত পাঁচ আসামীর মধ্যে চার জন আদালতে উপস্থিত ছিলেন। এরা হলেন ফরিদপুর সদর উপজেলার ধুলদী রাজাপুর গ্রামের কামাল শেখের ছেলে সাইফুল শেখ (২৭), কিতাব আলির ছেলে হাসেম শেখ (৩৫), শোভা খা’র ছেলে জাহিদ খা (২৮) ও মৃত আলিম বেপারীর ছেলে জুয়েল বেপারী (৩২)।
এই আসামিরা আগে থেকে জামিনে ছিলেন।  রায়ের দিন আদালতে হাজির হন।
তবে মৃত্যুদন্ড প্রাপ্ত ফরিদপুর সদর উপজেলার ধুলদী রাজাপুর গ্রামের ইসমাইল শেখের ছেলে আকাশ শেখ (১৮) মামলার শুরুতে গ্রেপ্তার হলেও পরে জামিনে গিয়ে আত্মগোপন করেন। রায় ঘোষনার সময় সে পলাতক ছিল।
মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত আসামীরা হলেন, ধুলদি রাজাপুর গ্রামের কামাল শেখের ছেলে সাইফুল শেখ (২৭), কিতাব আলির ছেলে হাসেম শেখ (৩৫), শোভা খা’র ছেলে জাহিদ খা (২৮) ও মৃত আলিম বেপারীর ছেলে জুয়েল বেপারী (৩২)।
২০১৪ সালের ২১ ডিসেম্বর রাতে ফরিদপুর সদরের কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের পশ্চিম গঙ্গাবর্দী গ্রামের তাস খেলায় জয় পরাজয়কে কেন্দ্র করে আসামীরা জাহিদুলকে কুপিয়ে হত্যা করে। এ ঘটনায় ২৩ ডিসেম্বর জাহিদুলের স্ত্রী জিয়াসমিন বেগম বাদী হয়ে ফরিদপুর কোতয়ালী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।
আদালতের নথি থেকে জানা যায়, ফরিদপুর কোতয়ালী উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের পশ্চিম গঙ্গাবর্দী গ্রামের জাহিদুল খা ২০১৪ সালের ২১ ডিসেম্বর ধুলদী রাজাপুর গ্রামের ইসমাইল শেখের বাড়িতে গিয়ে সহযোগীদের সাথে তাস খেলা শুরু করেন। খেলায় জয় পরাজয়কে কেন্দ্র করে নিজেদের মধ্যে কোন্দল শুরু হলে ওই ৫ জন ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জাহিদুলকে আহত করে ফেলে রেখে যায়। পরদিন দুপুরে রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে সেখানে তার মৃত্যু হয়।
এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী জিয়াসমিন বাদী হয়ে ২৩ ডিসেম্বর কোতোয়ালি থানায় ওই ৫ জনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। শুনানি ও সাক্ষ্য প্রমান শেষে আদালতের বিচারক এ রায় ঘোষণা করেন।

     এ জাতীয় আরো সংবাদ

ফেজবুকে আমরা