২৯শে আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১৪ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং

অন্যকে ফাঁসাতে গিয়ে নিজেই শ্রীঘরে

News

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে প্রতিপক্ষের লোকজনকে শায়েস্তা করতে লাখ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনা সাজিয়ে থানায় মিথ্যা মামলা করতে গিয়ে গ্রেপ্তার হয়েছেন মীর আলী শেখ নামের এক ব্যক্তি। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে আদালতের নির্দেশে তাকে জেলহাজতে পাঠানো হয়। প্রতারণার পাশাপাশি তার বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গোয়ালন্দ উপজেলার উজানচর ইউনিয়নের ভাদাইম্যা মোড় নামক এলাকার মৃত খোরশেদ আলী শেখের দিনমজুর ছেলে মীর আলী শেখ (৪৮)। তিন ছেলে ও এক মেয়ে সন্তানের জনক। এদিকে পাশের হাজী গফুর মন্ডলপাড়া গ্রামের মো. জলিল শেখের স্ত্রী খালেদা বেগম (৪৬)। তিনি পাঁচ ছেলে ও এক মেয়ের জননী। তার স্বামী ঢাকায় থেকে রিক্সা চালান। এ সুযোগে ওই মীর আলীর কুনজরে পড়েন খালেদা। বিভিন্ন সময়ে অশ্লীল কথা বলে তাকে উত্যক্ত করতে থাকেন মীর আলী। ঈদের কয়েক দিন আগে মীর আলী খালেদার বাড়িতে গিয়ে তাকে ‘কোর্ট ম্যারেজ’ করার প্রস্তাব দেন। মীর আলীর এমন অনৈতিক প্রস্তাবে সাড়া না দিয়ে বিষয়টি তিনি তার স্বামী ও ছেলেদের কাছে খুলে বলেন। মায়ের মুখ থেকে এমন অভিযোগ শুনে খালেদার ছেলেরা ওই মীর আলীর প্রতি ক্ষিপ্ত হন। ঘটনার দিন গতকাল বুধবার সকালে খালেদার ছেলেরা নিজ গ্রাম এলাকায় মীর আলীকে দেখতে পেয়ে ধরে পিটুনি দেয়।

পরে পিটুনি খাওয়ার পর ওই দিন বিকেলে গোয়ালন্দ ঘাট থানায় যান মীর আলী। সেখানে তিনি নিজে বাদী হয়ে খালেদার পাঁচ ছেলের বিরুদ্ধে এক লাখ টাকা ছিনতাইয়ের একটি লিখিত অভিযোগপত্র দেন। অভিযোগ পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রাথমিক তদন্তকাজ শুরু করে পুলিশ। এ সময় লাখ টাকা ছিনতাইয়ের অভিযোগটি মিথ্যা প্রমাণিত হওয়ার পাশাপাশি খালেদা বেগমের প্রতি মীর আলীর কুনজর ও উত্যক্ত করার ঘটনা ফাঁস হয়ে যায়। পরে লাখ টাকা ছিনতাইয়ের মিথ্যা মামলা করার চেষ্টার পাশাপাশি ছয় সন্তানের জননীকে যৌন হয়রানি করার অভিযোগে ওই দিন সন্ধ্যায় মীর আলী শেখকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে তাকে রাজবাড়ীর আদালতে নেওয়া হয়। এ সময় আদালতের নির্দেশে ওই মীর আলীকে জেলহাজতে পাঠানো হয়।

গোয়ালন্দ ঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রবিউল ইসলাম বলেন, গ্রেপ্তার মীর আলী শেখ একজন লম্পট প্রকৃতির লোক। প্রতারণার পাশাপাশি তার বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

     এ জাতীয় আরো সংবাদ

ফেজবুকে আমরা